ঢাকায় ৬০ ভাগ পুরুষ নারীর হাতে নির্যাতনের শিকার

ঢাকায় ৬০ ভাগ পুরুষ নারীর হাতে নির্যাতনের শিকার

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজকল্যাণ ও গবেষণা বিভাগের সাবেক পরিচালক অধ্যাপক তাহমিনা আখতার জানিয়েছেন, বর্তমানে পুরুষেরাও নারীর হাতে নিগ্রহ হচ্ছেন। রাজধানী ঢাকাতে ৬০ ভাগ পুরুষ নারীর হাতে নির্যাতনের শিকার। নারীবাদী মানে পুরুষকে অস্বীকার করা নয়। পুরুষদের অস্বীকার করেও কিছু করা সম্ভব নয়।

ফরিদপুরে ‘করোনা পরবর্তী বাংলাদেশের উচ্চশিক্ষা ক্ষেত্রে সংকট ও চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় গৃহীত পদক্ষেপ’ শীর্ষক এক সেমিনারে এ কথা বলেন তিনি।

অধ্যাপক তাহমিনা আখতার বলেন, আমাদের বাবা, ভাই, স্বামী সকলেই পুরুষ। তাদেরও দরকার রয়েছে। বরং নারী শিক্ষার প্রসার দরকার এই নিগ্রহ ও নির্যাতনের প্রতিকারের স্বার্থে।

পুরুষ নির্যাতন সম্পর্কে মো. মিজানুর রহমান নামের এক ব্যাক্তি বিডিটাইপকে বলে, দেখেন বর্তমানে নারীর চেয়ে পুরুষ বহুগুন বেশি নির্যাতন হয় যা মানুষ দেখেনা। শুধু শারীরিক নির্যাতনি না মানুষিক নির্যাতন ও হয় অনেক। নারীরা নির্যাতন হলে দেখাতে পারে কিন্তু পুরুষরা তা পারেনা। সত্যিকার অর্থে নারীরা আগের তোলনায় অনেক বেপোরুয়া হয়ে গেছে। আর আমি মনে করি নারীরা এমন হওয়ার মূল কারণ পরকীয়া।

মো. আমিন নামের এক ব্যাক্তি বলেন, মেয়েদের এমন বেপোরুয়া হওয়ার জন্য পরকীয়াই দায়ী। কারণ একটা নারী যখন অন্য একটা ছেলের সাথে পরকীয়ায় জড়ায় সে পুরুষ তখন ঐ নারীকে নানান রকম আশা ভরসা দেয়। আর নারীরা সেই লোভে ঘরের স্বামীর উপরে নির্যাতণ শুরু করে । পরকীয়া না ঠেকানো গেলে এর পরিনাম ভয়াবহ হয়ে দাঁড়াবে।

মন্তব্যসমূহ (০)