নওগাঁয় নিখোঁজের ৭ দিন পর ঘরের মেঝেতে পুঁতে রাখা মৃতদেহ উদ্ধার

নওগাঁয় নিখোঁজের ৭ দিন পর ঘরের মেঝেতে পুঁতে রাখা মৃতদেহ উদ্ধার

নওগাঁর রাণীনগর উপজেলায় নিখোঁজের ৭ দিন পর ঘরের মেঝেতে পুঁতে রাখা এক যুবকের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার বিকেলে হযরত আলী নামে ওই যুবকের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে তিনজনকে আটক করেছে পুলিশ। আটকরা হলেন নাহিদ, রবিউল ও শাহিন। নিহত যুবক হযরত আলী উপজেলা সদরের পূর্ব বালুভরা গ্রামের জমসেদ আলীর ছেলে। পুলিশ জানায়, পারিবারিক দ্বন্দ্বের জেরে হযরত আলী বেশ কিছু দিন থেকেই পার্শ্ববর্তী বন্ধু নাহিদের বাড়িতে থাকেন। গত ৩ জুন থেকে হঠাৎই নিখোঁজ হন তিনি। এমতাবস্থায় আজ দুপুরে হযরতের বাবা জমসেদ আলী রাণীনগর থানায় সাধারণ ডায়রি করেন। জমসেদ আলী ডায়রি ও তথ্যের ভিত্তিতে পুলিশ সন্দেহজনকভাবে নাহিদকে আটক করে। পরে তার দেয়া তথ্য মতে নাহিদের বাড়ির একটি ঘরের মেঝের মাটির নিচে পুঁতে রাখা অবস্থায় হযরতের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

রাণীনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শাহিন আকন্দ জানান, নাহিদের দেয়া তথ্য মতে হযরতকে হত্যা করে তার (নাহিদ) বাড়ির একটি ঘরের মেঝের মাটির নিচে পুঁতে রাখা হয়েছে। এমন তথ্যের ভিত্তিতে নাহিদের ঘরের মেঝেতে পুতে রাখা অবস্থায় মরদেহ উদ্ধার করা হয়। মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নওগাঁ সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

নাহিদের দেয়া তথ্যমতে একই গ্রামের রবিউল ও শাহিন নামে আরও দুই যুবককে আটক করা হয়েছে। কী কারণে এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে তার সঠিক কারণ বের করতে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে।

মন্তব্যসমূহ (০)