লাখো ফোনে চলবে না হোয়াটসঅ্যাপ জানুয়ারি থেকে

বর্তমান বিশ্বে সবচেয়ে জনপ্রিয় বার্তা আদান-প্রদানকারী প্ল্যাটফর্ম হোয়াটসঅ্যাপ। কোটি কোটি ব্যবহারকারী স্মার্টফোন, ট্যাবে এটি ব্যবহার করেন। এটি এন্ড টু এন্ড এনক্রিপশন সমর্থন করে।

হোয়াটসঅ্যাপ পছন্দ না করলেও এখন স্মার্টফোনে এর গুরুত্ব অস্বীকার করতে পারবেন না কেউ। বন্ধু বা আত্মীয়স্বজনের কেউ না কেউ এটি ব্যবহার করেন। তবে দুঃখজনক হচ্ছে, শিগগিরই অনেক স্মার্টফোনে এই অ্যাপ আর চলবে না। ১ জানুয়ারি থেকে অ্যান্ড্রয়েড ও আইওএস প্ল্যাটফর্মের বেশ কিছু ফোনে হোয়াটসঅ্যাপ কাজ করা বন্ধ করে দেবে।

প্রযুক্তিবিষয়ক ওয়েবসাইট গিজচায়না এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, সাধারণত পুরোনো অ্যান্ড্রয়েড ও আইওএস সংস্করণের ফোন ব্যবহারকারীরাই এর ভুক্তভোগী হবেন না। যাঁদের স্মার্টফোনে অ্যান্ড্রয়েড সংস্করণ ৪.০.৩-এর নিচে ও যাঁদের আইফোনে আইওএস ৯-এর নিচে অপারেটিং সিস্টেম আছে, তাঁরা আর হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার করতে পারবেন না।

গত বছর ফেসবুকের ক্ষেত্রেও এ ধরনের ঘটনা ঘটেছিল। আইওএস ৮ ও অ্যান্ড্রয়েড ২.৩.৭ সংস্করণে ফেসবুক তাদের সমর্থন বন্ধ করে দিয়েছিল।

হোয়াটসঅ্যাপের সংযোগ চালু রাখতে হয় স্মার্টফোন হালনাগাদ করতে হবে বা অ্যান্ড্রয়েডের হালনাগাদ সংস্করণ থাকতে হবে। অথবা নতুন কোনো অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইস কিনতে হবে। আইফোন ৪ বা এর আগের সংস্করণগুলোতে নতুন আইওএস সংস্করণ সমর্থন করবে না।

ফেসবুকের মালিকানাধীন হোয়াটসঅ্যাপে সম্প্রতি নতুন কিছু ফিচার যুক্ত হচ্ছে। হোয়াটসঅ্যাপ ওয়েব ও ডেস্কটপ বিটা অ্যাপে ভয়েস ও ভিডিও কল সেবা চালু হচ্ছে। অ্যান্ড্রয়েড ও আইওএসে এ সুবিধা ২০১৫ ও ২০১৬ সাল থেকেই রয়েছে।

বর্তমানে বিশ্বজুড়ে ২০০ কোটির বেশি ব্যবহারকারী হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার করছেন। এর ব্যবহারকারী বাড়তে থাকায় ইনস্ট্যান্ট মেসেজিং বাজারের ৪৪ শতাংশ এখন হোয়াটসঅ্যাপের দখলে। বাজারের ৩৫ শতাংশ দখল নিয়ে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে ফেসবুক মেসেঞ্জার।

মন্তব্যসমূহ (০)


Lost Password


মন্তব্য করতে নিবন্ধন করুন