খুলনায় লকডাউনের মধ্যেই ধুমধাম করে মেয়ের বিয়ে দিচ্ছেন উপজেলা চেয়ারম্যান

করোনাভাইরাস রোধে দেশজুড়ে চলছে এক সপ্তাহের লকডাউন। মানুষ ঘর থেকে বের হতে সাহস পাচ্ছেন যেখানে, সেখানে বিশাল আয়োজনে মেয়ের বিয়ে দিতে চলেছেন খুলনার তেরখাদা উপজেলা চেয়ারম্যান শেখ শহিদুল ইসলাম। আগামী ৯ এপ্রিল তিনি তার মেয়ে সুমাইয়া সুলতানা শোভার বিয়ের দিন ধার্য করেছেন।এই বিয়েকে কেন্দ্র করে এলাকায় ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনা শুরু হয়েছে।

সূত্র জানায়, মেয়ের বিয়েকে কেন্দ্র করে উপজেলা চেয়ারম্যান শেখ শহিদুল ইসলাম আগামী ৯ এপ্রিল দুপুরে নিজ বাড়িতে ব্যাপক আয়োজনের চেষ্টা করছেন। ইতোমধ্যে বেশকিছু গরু ও ছাগল কিনে রেখেছেন অতিথি আপ্যায়নের জন্য।

এলাকাবাসীরা বলছেন, হঠাৎ করে দেশে করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধি পেয়েছে। সংক্রমণ ঠেকাতে সরকার লকডাউন ঘোষণা দিয়েছে। এই অবস্থায় এতো লোকসমাগম হলে করোনা মারাত্মকভাবে ছড়িয়ে পড়তে পারে।

জানতে চাইলে উপজেলা চেয়ারম্যান শেখ শহিদুল ইসলাম বলেন, ‘লকডাউনের কারণে সবকিছু সীমিত করা হয়েছে। মানুষতো অনেক কিছু বলবে। সবকথা শুনতে গেলে কোনো কিছু করা যায় না।’

তিনি বলেন, ‘আমি যখন বিয়ের আয়োজন শুরু করি, তখন করোনার এতো প্রকোপ ছিল না। তখন লকডাউনও ছিল না। কিন্তু এখন তো কিছু করার নেই। জামাই চলে যাবে আমেরিকায়। তাই সীমিত পরিষরে হলেও বিয়ের ব্যবস্থা করতে হবে। বাড়ির ৬-৭টি উঠানে ১০-১৫ জন করে দুইবারে খাওয়ানো হবে।’

তেরখাদা উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সাদিয়া ইসলাম বলেন, এই লকডাউনের সময় কেউ লোকসমাগম করতে পারবেন না। উপজেলা চেয়ারম্যানের মেয়ের বিয়ের বিষয়ে তিনি কিছু জানেন না জানিয়ে বলেন, আমি বিষয়টি খতিয়ে দেখছি।

মন্তব্যসমূহ (০)


Lost Password


মন্তব্য করতে নিবন্ধন করুন