পরকিয়ায় ধরা পরে উলঙ্গ দৌড়!

পাবনা প্রতিনিধিঃ- পাবনার ভাঙ্গুড়ায় পরকিয়া করতে গিয়ে এলাকাবাসির ধাওয়া খেয়ে উলঙ্গ হয়ে পালিয়েছেন মকবুল হোসেন (৩৫) নামের এক ব্যক্তি। সে পারভাঙ্গুড়া ইউনিয়নের পারভাঙ্গুড়া গ্রামের মজিবরের ছেলে।গত শুক্রবার (১৬ এপ্রিল) গভীর রাতে উপজেলার পারভাঙ্গুড়া ইউনিয়নের টলটলিয়া পাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।এবিষয়ে ঘটনার পর থেকে ওই এলাকার ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হাই, একই ওয়াডের্র ইউপি সদস্য হারুন অর রশিদ অর্থের বিনিময়ে বিষয়টির সমাধান দেন।

এলাকাবাসি সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার পার-ভাঙ্গুড়া ইউনিয়নের পার-ভাঙ্গুড়া গ্রামের মজিবরের ছেলে মকবুল হোসেনের সাথে টলটলিয়া পাড়া গ্রামের জনৈক ব্যক্তির স্ত্রীর সাথে পরকিয়া সম্পর্ক থাকায় গত শুক্রবার গভীর রাতে তারা একত্রিত হয়।এক পর্যায়ে অসামাজিক কাজে লিপ্ত হতে গেলে স্থানীয় জনতা টের পায় এবং মকবুলকে আটক করতে গেলে সে উলঙ্গ অবস্থায় সবাইকে ধাক্কা দিয়ে পালিয়ে যায়। এলাকাবাসি ঘটনাস্থল থেকে মকবুলের ব্যবহৃত শার্ট, লুঙ্গি, মোবাইল, দোকানের চাবির গোছা, পায়ের জুতা ও টর্চ লাইট উদ্ধার করে গ্রাম প্রধান নজরুলের হেফাজতে রেখে দেন।

বিষয়টি নিয়ে ঐ রাতেই ওই নারীর পক্ষ থেকে থানায় অভিযোগ করতে চাইলে ইউপি সদস্য হারুন ও স্থানীয় ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হাই থানায় অভিযোগ করতে নিষেধ করেন এবং স্থানীয়ভাবে আপোষ-মীমাংস করা হবে বলে জানান।ঘটনার কয়েকদিন পর তারা অর্থের বিনিময়ে স্থানীয়ভাবে অপোষ করে দেন।  বিষয়টি নিয়ে ওই এলাকায় আলোড়ন সৃষ্টি হয়েছে।ঘটনার বিষয়ে বক্তব্য নিতে পারভাঙ্গুড়া ইউপি ৯ নং ওয়ার্ড সদস্য হারুন অর রশিদ এর মোবাইল নাম্বারে ফোন দিলে তার ফোন নম্বরটি বন্ধ পাওয়া যায়।

এ বিষয়ে পার ভাঙ্গুড়া ইউপি চেয়ারম্যান হেদায়তুল হক বলেন, নারী ঘটিত কোন বিষয় এলাকার নেতা ও ইউপি সদস্যদের শালিশ করার এখতিয়ার নেই। এ বিষয়ে ভাঙ্গুড়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মুহম্মদ আনোয়ার হোসেন বলেন, এ বিষয়ে কেউ লিখিত অভিযোগ দেননি। অভিযোগ দিলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে

মন্তব্যসমূহ (০)


Lost Password


মন্তব্য করতে নিবন্ধন করুন