জুয়ারিদের হামলায় সাংবাদিক আহত

গাইবান্ধায় সাংবাদিক সুমন মণ্ডলের ওপর হামলা চালিয়েছে জুয়ারিরা। জুয়ার আসর বন্ধ ও পুলিশে ধরিয়ে দেয়ার অভিযোগ এনে ওই সাংবাদিকের ওপর এ হামলা চালানো হয়।বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে সদর উপজেলার রামচন্দ্রপুর ইউনিয়ন পরিষদ সংলগ্ন এলাকায় এ হামলার ঘটনা ঘটে।গুরুতর আহত সুমন মণ্ডলকে উদ্ধার করে গাইবান্ধা জেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ব্যাপারে গাইবান্ধা থানায় মামলা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও মামলার এজাহারে জানা যায়, গাইবান্ধা সদর উপজেলার রামচন্দ্রপুর ইউনিয়নের শ্যামপুর এলাকায় জুয়া খেলা অবস্থায় ৬ জুয়ারিকে গ্রেফতার করে সদর থানা পুলিশ। তারা বুধবার জামিনে মুক্ত হয়। এতে তাদের এক লাখ টাকা খরচ হয়। তাদের গ্রেফতারের ব্যাপারে সাংবাদিক সুমন মণ্ডলের হাত রয়েছে এমন অভিযোগ করে বিভিন্ন মহলে তারা। সাংবাদিক সুমনকে দেখে নেবে এমন হুমকিও দেয় তারা।

বৃহস্পতিবার সাংবাদিক সুমন মণ্ডল গাইবান্ধা সদর উপজেলার বালুয়া গ্রামের বাড়ি থেকে মোটরসাইকেল যোগে গাইবান্ধা শহরে আসছিল। বেলা সাড়ে ১১ টার দিকে সদর উপজেলার রামচন্দ্রপুর ইউনিয়ন পরিষদ সংলগ্ন এলাকায় পৌঁছালে সাংবাদিক সুমন মণ্ডলের মোটরসইকেল আটকিয়ে জুয়ারি লিটন, নজমুল, সেলিমসহ কয়েকজন। তারা সুমন মণ্ডলের কাছে এক লাখ টাকা দাবি করেন। তাদের গ্রেফতারের ব্যাপারে কিছুই জানে না এমন কথা জানালে লিটন, নজমুল, সেলিমসহ কয়েকজন লাঠি ও লোহার রড দিয়ে সুমর মণ্ডলকে বেধড়ক মারপিট করেন। তারা সুমনের মোটরসাইকেলটিও ভাঙচুর করেন। এ সময় তারা সুমনের ভিডিও ক্যামেরা ও পকেটে থাকা ৫ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয়। সুমনের চিৎকারে আশপাশের লোকজন ছুটে এসে তাকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে গাইবান্ধা জেলা হাসপাতালে ভর্তি করেন। 

আহত সুমন রংপুর সংবাদ ও দৈনিক জাগো জনতা জেলা প্রতিনিধি এবং অনলাইন কেটিভি চ্যানেলের জেলা প্রতিনিধি। এ ঘটনায় গাইবান্ধার সাংবাদিকরা হামলার নিন্দা জানিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার জন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। গাইবান্ধা সদর থানার ওসি মো. মাহফুজার রহমান বলেন, এ ব্যাপারে সন্ধ্যায় সুমন মণ্ডল বাদী হয়ে সদর থানায় মামলা করেছেন। মামলা গ্রহণের পর আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। 

মন্তব্যসমূহ (০)


Lost Password


মন্তব্য করতে নিবন্ধন করুন