সেরাম ইনস্টিটিউটে অগ্নিকাণ্ডে ৫ জনের মৃত্যু

করোনাভাইরাস টিকা উৎপাদনে নিয়োজিত প্রতিষ্ঠান ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউটে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় পাঁচ জনের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এছাড়া ওই ভবনে আটকে পড়া আরও বেশ কয়েকজনকে জীবিত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে। প্রায় তিন ঘণ্টা পর দমকল কর্মীরা আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন। ধারণা করা হচ্ছে, বৈদ্যুতিক গোলযোগ থেকেই আগুনের সূত্রপাত হয়। সম্প্রচারমাধ্যম এনডিটিভির প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

ভারতের পুনে শহরে অবস্থিত সেরাম ইনস্টিটিউটের মানজিরি কমপ্লেক্সে বৃহস্পতিবার দুপুরে অগ্নিকাণ্ডের খবর পেয়ে দশটি ইউনিট ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। মানজিরি প্লান্টের পঞ্চম ফ্লোরে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়। এই ফ্লোরে যক্ষ্মার প্রতিষেধক বিসিজি টিকা সংশ্লিষ্ট কর্মকাণ্ড পরিচালিত হয়। অক্সফোর্ড ও অ্যাস্ট্রাজেনেকার করোনাভাইরাসের টিকা কোভিশিল্ড যেখানে উৎপাদন ও মজুত রাখা হয়েছে, তা অগ্নিকাণ্ড হওয়া স্থান অনেক দূরে বলে জানান কর্মকর্তারা।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় সেরাম ইনস্টিটিউটের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আদর পুনেওয়ালা এক টুইট বার্তায় জানান, কেবল জানা গেছে অগ্নিকাণ্ডে দুর্ভাগ্যজনক প্রাণহানি ঘটেছে। মৃতদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানান তিনি।

উল্লেখ্য, বিশ্বের সবচেয়ে বেশি পরিমাণ টিকা উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউট পুনের প্রায় একশ’ একর এলাকাজুড়ে বিস্তৃত। অগ্নিকাণ্ড শুরু হওয়া মানজিরি কমপ্লেক্স থেকে কোভিশিল্ড উৎপাদনের জায়গাটির দূরত্ব বেশ কয়েক মিনিটের।

ভবিষ্যতের মহামারি মোকাবিলা এবং প্রতিষ্ঠানের উৎপাদন সক্ষমতা বাড়ানোর চিন্তা করে মানজিরি কমপ্লেক্সে অন্তত আট থেকে নয়টি ভবনের নির্মাণকাজ চলছে। এর একটি ভবনে অগ্নিকাণ্ড হয় বলে জানিয়েছেন কর্মকর্তারা।

মন্তব্যসমূহ (০)


Lost Password


মন্তব্য করতে নিবন্ধন করুন