অপরাধচট্টগ্রাম

২০ শতক জমিতে গাঁজা চাষ, পুলিশের অভিযানে আটক ১

বান্দরবানে প্রায় ২০ শতক জমিতে এক ব্যক্তি গাঁজা গাছের চাষ করেছেন। পরে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারীবাহিনী গাছগুলো জব্দ করে এবং একজনকে গ্রেপ্তার করেছে। পুলিশ বলছে, এই গাঁজা গাছগুলোর ওজন ৮৫ কেজি। যার বাজার মূল্য আনুমানিক ১৭ লাখ টাকা। বান্দরবানের লামা উপজেলায় এই চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে।

প্রিয় পাঠক আমাদের পেজে লাইক দিয়ে আমাদের সাথে থাকুন

শনিবার উপজেলা সদর ইউনিয়নের দুর্গম পাহাড়ি রওজাঝিরি এলাকায় পুলিশি অভিযান চালিয়ে গাঁজা গাছগুলো ধ্বংস করা হয়। অভিযানের সময় গাঁজা গাছের বীজসহ খুরশিদা বেগম (৩৫) নামের এক নারীকে আটক করেছে পুলিশ।

সূত্র জানায় যায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পরিদর্শক (তদন্ত) মোহাম্মদ আমিনুল হকের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে অভিযান চালায়। অভিযানে ইয়াহিয়া মিন্টুর রোপন করা গাঁজার ৩০৩টি পূর্ণ বয়স্ক ও ২৫০টি চারা গাছ ধ্বংস করে পুলিশ। তবে গাঁজা চাষী ইয়াহিয়া মিন্টুকে আটক করা যায়নি।

স্থানীয়রা বলছেন, ২০১৮ সালে লামা পৌরসভা এলাকার হরিণ ঝিরি গ্রামের বাসিন্দা জাকের হোসেন কুতুবীর ছেলে ইয়াহিয়া মিন্টু রওজাঝিরিস্থ ৬০ শতক জমি ১৫ হাজার টাকায় লিজ নেন। পরে জমির প্রায় চল্লিশ শতাংশ জমিতে সবজি চাষ করেন। পাশাপাশি বাকি ২০ শতক জমিতে গাঁজার চাষ করেন। প্রথমে এলাকাবাসী বুঝতে পারেনি। পরে শনিবার সকালের দিকে স্থানীয়রা পুলিশ ও স্থানীয় সাংবাদিকদের খবর দেয়। পরে তাৎক্ষণিকভাবে অভিযানে নামে পুলিশ।

লামা সদর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মিন্টু কুমার সেন এ বিষয়ে বলেন, ‘বিষয়টি সম্পর্কে আমি জানতাম না। পরে পুলিশ ব্যবস্থা নিয়েছে।’

স্থানীয় থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ আমিনুল হক বলেন, গাজা চাষের অপরাধে খুরশিদা বেগমকে আটক করা হয়েছে। মূল হোতা ইয়াহিয়া মিন্টুকেও গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ নেয়া হবে।

প্রিয় পাঠক আপনার মতামত জানান

এ বিভাগের আরো খবর

Close