আন্তর্জাতিক

সিরিয়ায় আরও দুটি সামরিক ঘাঁটি নির্মাণ করলো যুক্তরাষ্ট্র

সিরিয়ার রাকা প্রদেশে আরও দুটি সামরিক ঘাঁটি নির্মাণ করলো যুক্তরাষ্ট্র। প্রদেশটির তেল আবিয়াদ শহরের অদূরে এই দুটি ঘাঁটি নির্মাণ করা হয়েছে।শুক্রবার প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে যুক্তরাজ্য ভিত্তিক সিরিয়ার মানবাধিকার পর্যবেক্ষক সংস্থা ‘দ্য সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটস’র বরাত দিয়ে এই তথ্য জানিয়েছে ইরানি গণমাধ্যম পার্স টুডে।নির্ভরশীল সূত্রের বরাত দিয়ে সংস্থাটি এই তথ্য জানালেও ঠিক কোথায় ঘাঁটি দুটি নির্মাণ করা হয়েছে তা উল্লেখ করেনি। এনিয়ে সিরিয়ার কুর্দি অধ্যুষিত অঞ্চলে যুক্তরাষ্ট্রের ঘাঁটির সংখ্যা ২১টি হলো। গত ১৭ দিনে সেখানে তিনটি ঘাঁটি নির্মাণ করা হয়েছে।এর আগে গত ২৭ নভেম্বর সিরিয়ার তুর্কি সীমান্তের অদূরে একটি সামরিক ঘাঁটি নির্মাণ করা হয়। ঘাঁটি নির্মাণের পরপরই তাড়াহুড়ো করে সেখানে উন্নত সামরিক সরঞ্জাম মোতায়েন করা হয়।তুর্কি বাহিনী সিরিয়ায় নতুন করে অভিযান শুরু করতে পারে বলে যখন আশঙ্কা করা হচ্ছে, তখনই যুক্তরাষ্ট্রের ঘাঁটি নির্মাণের বিষয়টি সামনে এলো।বৃহস্পতিবার ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্সে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে বলা হয়, তুরস্কের যেকোনও হামলা শক্তভাবে প্রতিহত করবে বলে জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্র সমর্থিত ‘সিরিয়ান ডেমোক্র্যাটিক ফোর্সেস’র কমান্ডার-ইন-চিফ মাজলুম কোবানি।তিনি রয়টার্সকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে বলেন, তুরস্কের সীমান্তবর্তী অঞ্চলে কুর্দিদের বিরুদ্ধে তুর্কি সরকার আক্রমণ চালালে তা প্রতিরোধ করতে গুরুতর পদক্ষেপ নিয়েছে ওয়াশিংটন। আমরা এখন কূটনৈতিকভাবে বিষয়টি মোকাবেলার চেষ্টা চালাচ্ছি।উল্লেখ্য, শুক্রবার প্রকাশিত ইরানি গণমাধ্যমটির প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, সিরিয়া সরকারের কোনও অনুমতি না নিয়েই দেশটিতে সেনা মোতায়েন করছে যুক্তরাষ্ট্র। দায়েশ বা আইএস দমনের কথা বলে দেশটিতে ঢুকলেও তারা মূলত এখানকার সন্ত্রাসীদের সর্বাত্মক সহযোগিতা দিয়ে যাচ্ছে।

Close