খেলাধুলা

টানা ১৪ বছর পর আজ দ্বিতীয় জয় আসবে কি?

স্পোর্টস ডেস্কঃ টিম টাইগার সর্বশেষ অস্ট্রেলিয়ার মুখোমুখি হয়েছিল বছর তিনেক আগে এই ইংল্যান্ডেই। আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সে ম্যাচে প্রথম ইনিংসে ১৮২ রানে অলআউট হয়ে যায় বাংলাদেশ। জবাবে ব্যাট করতে নেমে ১৬ ওভার শেষে অসিদের স্কোর যখন ৮৩/১, তখন বৃষ্টির কারণে বন্ধ হয়ে যায় খেলা। শেষ পর্যন্ত ম্যাচটি পরিত্যক্তই ঘোষণা করা হয়। ওই ম্যাচ বাদ দিলে অসিদের বিপক্ষে সর্বশেষ পুরো ম্যাচ বাংলাদেশ খেলেছিল ২০১১ সালে। আর এখন পর্যন্ত অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে একটি মাত্র ম্যাচ জিতেছে বাংলাদেশ। সেটা ২০০৫ সালে, কার্ডিফে ন্যাটওয়েস্ট সিরিজে।

প্রিয় পাঠক আমাদের পেজে লাইক দিয়ে আমাদের সাথে থাকুন

চলমান বিশ্বকাপের ২৬তম ম্যাচে আজ বৃহস্পতিবার নটিংহামে অসিদের বিপক্ষে খেলতে নামবে টাইগাররা। গুরুত্বপূর্ণ এই ম্যাচে ‘ভালো খেলে’ জেতার আশা করছেন বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা।

এদিকে আবহাওয়ার পূর্বাভাস জানাচ্ছে, আজ নটিংহামে বৃষ্টি হতে পারে। বাংলাদেশ অধিনায়কের চাওয়া, ম্যাচটি যেন বৃষ্টিতে ভেসে না যায়।

গতকাল ম্যাচ-পূর্ববর্তী সংবাদ সম্মেলনে ম্যাশ বলেন, ‘আমরা চাই ম্যাচটা হোক। কাল বৃষ্টি হলে যদি এক পয়েন্টও পাই বা যেটাই হোক, তা যেন আমাদের পক্ষে আসে।’

বাংলাদেশ অবশ্য বেশ আত্মবিশ্বাস নিয়েই আজ মাঠে নামবে। নিজেদের সর্বশেষ ম্যাচে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়ে মানসিকভাবে চাঙ্গা টিম টাইগার। অবশ্য অসিরাও চমৎকার বিশ্বকাপ কাটাচ্ছে।

এ মুহূর্তে বিশ্বকাপের পয়েন্ট টেবিলে তৃতীয় স্থানে আছে অ্যারন ফিঞ্চের নেতৃত্বে অস্ট্রেলিয়া দল। তাদের সামনে নিউজিল্যান্ড ও স্বাগতিক ইংল্যান্ড।

অন্যদিকে বাংলাদেশ আছে তালিকার পঞ্চম স্থানে। তাই এ ম্যাচে ফেভারিট হিসেবেই মাঠে নামবে অসিরা। তবে বাংলাদেশ দল নিজের শতভাগ দিয়েই ম্যাচে লড়াই করবে। টাইগাররা কী করতে পারে, তার প্রমাণ এ বিশ্বকাপ পেয়েছে। বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানের দুর্দান্ত ফর্মসহ দলের অন্য ব্যাটসম্যান ও বোলারদের পারফরম্যান্সে ভর করে নিজেদের সর্বশেষ ম্যাচে উইন্ডিজকে প্রায় অনায়াসেই হারিয়েছে বাংলাদেশ।

ক্যারিয়ার-সেরা ব্যাটিং ফর্মে থাকা সাকিবকে নিয়ে আলাদা করে পরিকল্পনা আঁটছে অসিরা, তা বলা বাহুল্য। আর বছর দুয়েক আগে অসিদের বিপক্ষে বাংলাদেশের ঐতিহাসিক টেস্ট জয়ে সামনে থেকেই নেতৃত্ব দিয়েছিলেন এই সাকিব, সেটাও নিশ্চয়ই মনে আছে অসিদের।

ফরম্যাট ভিন্ন হয়তো, কিন্তু অসি কোচ জাস্টিন ল্যাঙ্গার জানিয়েছেন, সাকিবকে নিয়ে পরিকল্পনা আছে তাঁদের।

ল্যাঙ্গার বলেছেন, ‘সাকিব সম্ভবত বিশ্বের সেরা অলরাউন্ডার এবং বাঁহাতি স্পিনার।

অসিদের জন্য অবশ্য সুখবর বয়ে এনেছে অলরাউন্ডার মার্কাস স্টয়নিসের ইনজুরি থেকে ফেরা। অবশ্য আজকের অসি একাদশে তিনি থাকছেন কি না, তা নিশ্চিত নয়।

ট্রেন্ট ব্রিজের পিচের কথা মাথায় রেখে একাদশে একজন বিশেষজ্ঞ স্পিনার রাখার ইঙ্গিত দিয়েছেন অসি কোচ।

‘চারজন পেসার খেলানোর কৌশলটি বদল হতেও পারে। স্টয়নিসের ইনজুরির কারণেই ওটা (চার পেসার খেলানো) করতে হয়েছিল। ট্রেন্ট ব্রিজে পিচ শুকনো হবে বলে মনে হচ্ছে।’

নিজেদের প্রথম তিন ম্যাচে লেগস্পিনার অ্যাডাম জাম্পাকে খেলিয়েছিল অস্ট্রেলিয়া। এর মধ্যে দুটো জিতেছে অসিরা। তবে নিজেদের শেষ দুই ম্যাচে কোনো স্পিনার খেলায়নি অস্ট্রেলিয়া।

গত দুই ম্যাচে পার্টটাইম বোলার গ্লেন ম্যাক্সওয়েলকেই প্রধান স্পিনার হিসেবে ব্যবহার করেছে অস্ট্রেলিয়া। পাশাপাশি অসি অধিনায়ক ফিঞ্চও বল করেছেন। সাফল্যও পেয়েছেন পাকিস্তানের বিপক্ষে। স্কোয়াডে থাকা অফস্পিনার নাথান লায়নকে এখনো কোনো ম্যাচে খেলায়নি অস্ট্রেলিয়া।

অন্যদিকে র‍্যাংকিংয়ের শীর্ষ দলগুলোর বিপক্ষে নিজেদের শতভাগ উজাড় করে দিয়েই খেলে অভ্যস্ত বাংলাদেশ। উইন্ডিজের বিপক্ষে জয়ের আগে দক্ষিণ আফ্রিকাকেও হারিয়েছিল বাংলাদেশ।

অসিদের মতোই পাঁচটি ম্যাচ খেলেছে বাংলাদেশ। পয়েন্ট পেয়েছে পাঁচটি। আজকের ম্যাচে জয় দিয়ে শেষ চারে ওঠার স্বপ্নটা আরো ভালোভাবে জিইয়ে রাখতে চায় বাংলাদেশ।

ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে অপরাজিত ১২৪ রানের ইনিংস খেলার পর সাকিব জানিয়েছিলেন, মিচেল স্টার্ক ও প্যাট কামিন্সের নেতৃত্বে অসি পেস আক্রমণ নিয়ে ভাবছেন না তিনি।

সাকিব বলেছিলেন, ‘গত চার ম্যাচে বিশ্বের সেরা কয়েকজন পেস বোলারের বিপক্ষে খেলেছি আমরা। তাঁদের বেশ ভালোভাবেই মোকাবিলা করেছি। আমরা ইংল্যান্ডের বিপক্ষে খেলেছি, ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে খেলেছি, তাই এটা নিয়ে ভাবি না। কারণ, ওই দুদলেই ঘণ্টায় ১৪০/১৫০ কি.মি. গতিতে বল করা বোলার আছেন।

উইন্ডিজের বিপক্ষে রান পেয়েছেন বাংলাদেশ দলের নির্ভরযোগ্য ওপেনার তামিম ইকবাল। বিশ্বকাপে প্রথমবারের মতো খেলতে নামা লিটন দাস ৬৯ বলে ৯৪ রানের ইনিংস খেলে নিজের ক্ষমতার জানান দিয়ে রেখেছেন।

প্রিয় পাঠক আপনার মতামত জানান

এ বিভাগের আরো খবর

Close
Close