বাংলাদেশ

আরেক ‘শাপলা চত্বরের’ হুমকি হেফাজত নেতার

ভোলার বোরহানউদ্দিনের ঘটনায়ও ২০১৩ সালের মতো ফের মতিঝিলের শাপলা চত্বরে বিক্ষোভ সম্মেলন করার হুমকি দিয়েছে হেফাজতে ইসলাম।

প্রিয় পাঠক আমাদের পেজে লাইক দিয়ে আমাদের সাথে থাকুন

সরকারের উদ্দেশ্যে হেফাজত নেতা মাওলানা মামুনুল হক বলেন, ‘আমাদের কাছে মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা.) এর সম্মান অনেক বেশি। যদি তার সম্মান রক্ষা করতে না পারেন তাহলে আপনাদের গদিতে আগুন দেয়া হবে। দোষীদের শাস্তি না হলে আমরা আবারও শাপলা চত্বরে যাব।’

ভোলার বোরহানউদ্দিনের ঘটনায় পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী মঙ্গলবার বিকালে জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমে বিক্ষোভ সমাবেশ করে হেফাজতে ইসলাম। সেখান থেকেই সরকারের উদ্দেশ্যে হেফাজত নেতা মাওলানা মামুনুল হক এ হুমকি দেন।

সমাবেশে হেফাজতে ইসলামের ঢাকা মহানগর আমির আল্লামা নূর হোসেন কাসেমী বলেন, আল্লাহর নবীর সাথে যারা বেয়াদবি করেছে, তাদের জনতা কখনও মেনে নেবে না। যারা আল্লাহর নবীর মান ইজ্জত রক্ষা করতে পারে না তাদের ক্ষমতায় থাকার কোনো অধিকার নেই।

তিনি বলেন, অভিযুক্তদের শাস্তি নিশ্চিত না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চলবেই চলবে। এ দেশের মানুষ শান্তি চায়। আমরা সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতিতে বিশ্বাসী।

নূর হোসেন কাসেমী বলেন, আমরা প্রধানমন্ত্রীর কাছে অনুরোধ করব, যারা গ্রেফতার হয়েছে তাদেরকে মুক্তি দিন। আমাদের এই শান্তিপূর্ণ দেশে হিন্দুত্ববাদী সংগঠন ইসকন সাম্প্রদায়িক বিভেদ সৃষ্টি করতে চায়। আমাদের দেশে বিরাজমান শান্তি নষ্ট করতে চায়। এই দেশে ইসকনের সকল কার্যক্রম বন্ধ করতে হবে। এই দেশে কোনো অশুভ তৎপরতা দেশের শান্তিকামী তৌহিদী জনতা মেনে নিবে না। চলতে দিবে না।

সমাবেশে বক্তব্যে হেফাজতের নেতারা বলেন, ভোলার বোরহানউদ্দিনের ঘটনায় বিচার বিভাগীয় তদন্ত করতে হবে। একই সাথে গুলিবর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্তদের প্রত্যাহার করতে হবে। কটূক্তিকারীদের সর্বোচ্চ শাস্তির বিধান রেখে সংসদে আইন পাস করতে হবে।

তারা বলেন, চট্টগ্রামের হাটহাজারির আন্দোলনে তারা যে ১৫ দিনের সময় বেঁধে দিয়েছেন এর মধ্যে অভিযুক্তদের আইনের আওতায় আনতে হবে এবং তৌহিদী জনতাকে অজ্ঞাত মামলা থেকে মুক্তি দিতে হবে। তারা বলেন, যে কয়জন তৌহিদী জনতা শহীদ হয়েছেন তাদের পরিবারকে ক্ষতিপূরণ দিতে এবং যারা চিকিৎসাধীন তাদের সর্বোত্তম চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করতে হবে।

প্রিয় পাঠক আপনার মতামত জানান

এ বিভাগের আরো খবর

Close
Close