নিজ বাসা থেকে মাদকাসক্ত ব্যক্তির গলিত মরদেহ ‍উদ্ধার

Google+ Pinterest LinkedIn Tumblr +

চট্টগ্রাম: নগরীতে নিজ বাসা থেকে আনুমানিক ৫০ বছর বয়সী এক ব্যক্তির গলিত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। জয়নাল ‍আবেদিন খোকন নামে ওই ব্যক্তি মাদকাসক্ত ছিলেন বলে তার পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন।

বৃহস্পতিবার (১২ অক্টোবর) সন্ধ্যা ৬টার দিকে খোকনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

নগরীর কোতয়ালি থানার আসকারদিঘীর পাড়ে আজাদ মসজিদের সামনে একটি সেমিপাকা প্রায় পরিত্যক্ত ঘর থেকে খোকনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। ওই ঘরে খোকন ভাড়া থাকতেন বলে বাংলানিউজকে জানিয়েছেন তার বড় ভাই মো.হানিফ।

হানিফের ছেলে মো.ইমরান মুরাদ বাংলানিউজকে জানান, এলাকার স্থায়ী বাসিন্দা খোকন দীর্ঘদিন ধরে মাদকাসক্ত ছিলেন। বছর দশেক আগে তার সঙ্গে স্ত্রীর ছাড়াছাড়ি হয়। এরপর নি:সন্তান খোকন আরও বেশি মাদকাসক্ত হয়ে পড়েন। ভাইয়ের পরিবারের সঙ্গেও তার সুসম্পর্ক ছিল না। ডেভেলপারের কাছে জায়গা বিক্রির টাকায় চলতেন খোকন। ভাত খেতেন হোটেলে।

হানিফ বাংলানিউজকে জানান, অতিরিক্ত পরিমাণে মাদকাসক্ত খোকন দীর্ঘদিন ধরে যক্ষ্মা রোগেও ভুগছিলেন।

ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা গেছে, প্রায় পরিত্যক্ত ঘরের ভেতরে চৌকির উপর শোয়া অবস্থার তার মরদেহ পড়ে আছে। বুকের উপর আড়াআড়ি করে রাখা দুই হাত। শরীরের বিভিন্ন অংশ, মুখ, গলা ফুলে গেছে। ওই ঘরের আশপাশে তীব্র দুর্গন্ধ ছড়িয়ে পড়েছে।

আশপাশের বাসিন্দারা দুর্গন্ধ পেয়ে ঘরের জানালা দিয়ে উঁকি দিয়ে তাকে খাটের উপর পড়ে থাকা অবস্থায় দেখতে পান। এরপর দরজা ভেঙে ভেতরে গিয়ে মৃত্যু নিশ্চিত হয়ে পুলিশকে খবর দেন।

পুলিশের ধারণা, অতিরিক্ত নেশাদ্রব্য খাওয়ার পর ঘুমের মধ্যে অসুস্থ হয়ে খোকন মারা গেছেন। কমপক্ষে দুইদিন আগে তার মৃত্যু হয়েছে বলে পুলিশ ধারণা করছেন।

ঘটনাস্থলে থাকা নগর পুলিশের কোতয়ালি জোনের সহকারি কমিশনার জাহাঙ্গীর আলম বাংলানিউজকে বলেন, খোকনের পরিবারের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে তিনি মাদকাসক্ত ছিলেন। অতিরিক্ত মদ কিংবা অন্য কোন নেশাদ্রব্য খাওয়ার কারণে অসুস্থ হয়ে মারা যেতে পারে। ময়নাতদন্তে বিষয়টি পরিস্কার হবে।

খোকন আসকারদিঘীর পাড়ের আজাদ মসজিদের মোতওয়াল্লি প্রয়াত আমির হামজার ছেলে। আমির হামজার মৃত্যুর পর তার বড় ছেলে মো.হানিফ ওই মসজিদের মোতওয়াল্লির দায়িত্ব পালন করছেন।

Share.