শিরোনাম
হোম / আন্তর্জাতিক / যুক্তরাষ্ট্র ও তুরস্কের সঙ্গে কাতারের যৌথ সামরিক মহড়া

যুক্তরাষ্ট্র ও তুরস্কের সঙ্গে কাতারের যৌথ সামরিক মহড়া

যুক্তরাষ্ট্র ও তুরস্কের সঙ্গে এক যৌথ সামরিক মহড়ার প্রস্তুতি শুরু করেছে কাতার। রুশ গণমাধ্যম রাশিয়া টুডেকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে এই তথ্য জানান কাতারি প্রতিরক্ষামন্ত্রী খালিদ বিন মোহাম্মদ আল আতিয়াহ।

তিনি জানান, যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে কাতারের সম্পর্ক অনেক পুরোনো ও বন্ধুত্বপূর্ণ। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের টুইট সবসময় আনুষ্ঠানিক নয় বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

খালিদ বলেন, যুক্তরাষ্ট্র কাতারের আল-উদেইদ বিমানঘাঁটির বিকল্প খুঁজবে না। ২০১৪ সালে স্বাক্ষরিত দুই দেশের অস্ত্র চুক্তি আরও মজবুত হয়েছে। তার ভাষায়, ‘আমাদের প্রতিবেশী দেশগুলো আমাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ এনে সম্পর্ক ছিন্ন করেছে। অথচ এ বিষয়ে আমাদের কিছুই জানা ছিলো না। আমরা খুবই অবাক হয়ছি।’

এই নিষেধাজ্ঞাকে পেছন থেকে ছুরিকাঘাতের মতো বলেও উল্লেখ করেন কাতারের এই প্রতিরক্ষামন্ত্রী। আরব দেশগুলোর সঙ্গে কাতারের কূটনৈতিক সংকট শুরুর পর প্রথম কোনো সামরিক মহড়া দিতে যাচ্ছে দেশটি। ইতিমধ্যে উপসাগরীয় কাতারের হামাদে দুটি মার্কিন রণতরী এসে পৌঁছেছে।

গত ৫ জুন ‘সন্ত্রাসবাদে সমর্থন’ দেয়ার অভিযোগ তুলে কাতারের সঙ্গে সম্পর্ক বিচ্ছিন্ন করার ঘোষণা দেয় সৌদি আরব এবং তার মিত্র মিসর, সংযুক্ত আরব আমিরাত এবং বাহরাইন। পরে এই তালিকায় যুক্ত হয় মালদ্বীপ এবং লিবিয়া ও ইয়েমেনের পশ্চিমা সমর্থিত সরকার। সড়কপথ, নৌ-পথ ও আকাশ পথেও কাতারের সঙ্গে সব ধরনের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করে আরব দেশগুলো। অবশ্য ওই অভিযোগকে শুরু থেকেই ‘ভিত্তিহীন’ বলে প্রত্যাখ্যান করে আসছে কাতারি প্রশাসন।

Facebook Comments

About Mahmdur Rahman