শিরোনাম
হোম / অপরাধ / আঃ লীগ সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অনার্স পড়ুয়া তরুনীকে ধর্ষণের অভিযোগে তোলপাড়

আঃ লীগ সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অনার্স পড়ুয়া তরুনীকে ধর্ষণের অভিযোগে তোলপাড়

বগুড়া ব্যুরো –
বগুড়া নন্দীগ্রাম উপজেলার ভাটরা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যান মোরশেদুল বারীর (৪২) বিরুদ্ধে এক কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষণ ও নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় এলাকাজুড়ে আলোচনা সমালোচনার ঝড় উঠার পর গাঁ ঢাকা দিয়েছেন অভিযুক্ত চেয়ারম্যান।

এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার বগুড়া শাজাহানপুর থানায় মামলা করেছেন অনার্স দ্বিতীয় বর্ষে পড়ুয়া ওই ছাত্রী। মামলা দায়েরের পর বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তার ডাক্তারি পরিক্ষাও সম্পন্ন করা হয়েছে।

বগুড়া পর্যটন মোটেলসহ দেশের বিভিন্ন জায়গায় নিয়ে তাকে ধর্ষণ করা হয়েছে বলে এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে। ওই চেয়ারম্যান তার মোবাইল ফোন বন্ধ করে আত্মগোপনে আছেন।

অভিযোগকারী ওই ছাত্রী জানান, ইউপি নির্বাচনের পরে মোবাইল ফোনের সূত্র ধরে সম্পর্ক হয় চেয়ারম্যান মোরশেদুল বারীর সাথে। কিছু বুঝে ওঠার আগেই চেয়ারম্যান তাকে জালে আটকে ফেলেন। কোনো ভাবেই সে চেয়ারম্যানের জাল থেকে বের হতে পারছিলেন না। বগুড়া পর্যটন মোটেলের কয়েকটি রুম নাম্বার উল্লেখও করেন ওই ছাত্রী।

এ ছাড়াও রাজশাহী, কক্সবাজারসহ বিভিন্ন জায়গায় নিয়ে তার সাথে শারিরীক সম্পর্ক করে এবং শারিরীক নির্যাতন করেন ওই চেয়ারম্যান। ছাত্রী জানান, চেয়ারম্যান তাকে সবচেয়ে বেশি নির্যাতন করেছিলেন রাজশাহীতে।

এ ঘটনার পরে বগুড়া জেলা প্রশাসক এবং জেলা পুলিশ সুপারকে মৌখিক ভাবে বিষয়টি জানিয়েছিলেন।

বুধবার শাজাহানপুর থানায় আসেন মামলা করতে। প্রথমে পুলিশ তাকে কোন সহযোগিতা না করেই বাড়ি চলে যাওয়ার পরামর্শ দেন। মামলা করে বিচারের দাবিতে অবিচল থাকায় বৃহস্পতিবার মামলা নেয় পুলিশ।

পরে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তার ডাক্তারি পরিক্ষা সম্পন্ন হয়।

এবিষয়ে জানতে ইউপি চেয়ারম্যান মোরশেদুল বারীর ব্যবহৃত মোবাইল ফোনে বার বার ফোন কররেও বন্ধ পাওয়া যায়।

নন্দীগ্রাম উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি জাহিদুর রহমান মোবাইল ফোনে জানান, ধর্ষণ তো একদিনে হয় নাই। এর আগে তো বিয়ের চেষ্টা করেছিলো ওই মেয়েটি। এখন এসে ধর্ষণ মামলা করেছে। আইনে যা হয় তাই হবে।

মামলা দায়েরের সত্যতা নিশ্চিৎ করে শাজাহানপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (সার্বিক) জিয়া লতিফুল ইসলাম জানান, বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মেয়েটির ডাক্তারি পরিক্ষা সম্পন্ন করা হয়েছে। প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Facebook Comments

About Kalam Khan

www.myhostit.com