হায়েজ অবস্থায় স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে কেমন সম্পর্ক থাকবে.?

Google+ Pinterest LinkedIn Tumblr +

লেখকঃ ডাঃ হাফেজ মাওলানা মোঃ সাইফুল্লাহ মানসুর
হায়েজ অবস্থায় স্ত্রীর সাথে সঙ্গম ছাড়া আর সব রকম সম্পর্কই করা যাবে যেমন তার সাথে কথা বলা, একসাথে ঘুমানো, একসাথে একপাত্রে খাওয়া, চুম্বন করা ইত্যাদি যেমন আল্লাহ বলেন-
(হে নবী) আর তারা আপনাকে রজঃস্রাব (হায়েয) সম্বন্ধে জিজ্ঞেস করে। বলুন, “তা অশুচি” কাজেই তোমরা রজঃস্রাবকালে স্ত্রী-সংগম থেকে বিরত থাক এবং পবিত্র না হওয়া পর্যন্ত (সংগমের জন্য) তাদের নিকটবতী হবে না । তারপর তারা যখন উত্তমরূপে পরিশুদ্ধ হবে তখন তাদের নিকট ঠিক সেভাবে গমন করবে, যেভাবে আল্লাহ্ তমাদের কে আদেশ দিয়েছেন। নিশ্চয়ই আল্লাহ তাওবাকারীকে ভালবাসেন এবং তাদেরকেও ভালবাসেন যারা পবিত্র থাকে। (সূরা বাকারা-২২২)

হায়েয অবস্থায় স্ত্রীদের সাথে কতটুকু মেলামেশা করা যাবে, তা রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলে দিয়েছেন। হায়েজের স্থানে সঙ্গম বেতিত আর সবই করতে পার”। [মুসলিম: ৩০২] উম্মুল মুমিনীন হযরত মায়মূনাহ রাদিয়াল্লাহু আনহা বলেন, “রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম যখন হায়েয অবস্থায় কোন স্ত্রীর সাথে মেলামেশা করতে চাইতেন তখন তাকে হয়েযের স্থানে কাপড় পরিধান করে নিতে বলতেন। ” [বুখারী: ৩০৩, মুসলিম: ২৯৪]
আমাদের সমাজে কিছু লোক আছে যারা হায়েজ অবস্থায় স্ত্রীর থেকে দুরে দূরে অবস্থান করে, একসাথে খেতে বা একসাথে ঘুমাতে অনিহা প্রকাশ করে যা মোটেও ঠিক না। এই সময় স্ত্রীর মন মেজাজ একটু খারাপ থাকে তাই স্বামীর কর্তব্য হলো স্ত্রীর প্রতি আরো বেশি যতœশীল হওয়া এবং বেশি সময় দেওয়া।

ফেসবুক মন্তব্য
Share.