স্বর্ণ নীতিমালার আলোকে পূর্ণাঙ্গ আইনের দাবি টিআইবির

Google+ Pinterest LinkedIn Tumblr +

স্বর্ণ নীতিমালা-২০১৮ এর খসড়া মন্ত্রিসভায় অনুমোদনে সন্তোষ প্রকাশ করেছে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)। পাশাপাশি টিআইবি স্বর্ণখাতের জন্য নীতিমালাটির আলোকে একটি পূর্ণাঙ্গ আইন প্রণয়নের দাবি জানিয়েছে।
বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে টিআইবি এ দাবি জানায়।
বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, নীতিমালাটির ফলে দীর্ঘদিন ধরে স্বর্ণখাতে বিদ্যমান সুশাসনের ব্যাপক ঘাটতি উত্তরণ করে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা প্রতিষ্ঠার অভূতপূর্ব সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে। তবে এ প্রত্যাশা পূরণের জন্য সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ ও ব্যবসায়ী মহলসহ সকল অংশীজনকে নীতিমালার কঠোর বাস্তবায়নের বিকল্প নেই। এজন্য প্রয়োজন সকল পর্যায়ে রাজনৈতিক সদিচ্ছার পাশাপাশি প্রশাসনিক ও ব্যবসায়িক কঠোর শুদ্ধাচারের চর্চা।
বিজ্ঞপ্তিতে টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, মন্ত্রিসভায় বহুল প্রতীক্ষিত ‘স্বর্ণ নীতিমালা-২০১৮’ এর খসড়া অনুমোদন এ খাতে সুশাসন প্রতিষ্ঠার প্রচেষ্টায় অবশ্যই একটি সন্তোষজনক পদক্ষেপ। এখন এ নীতিমালার আলোকে দেশের স্বর্ণখাতের সম্পূর্ণ ব্যবস্থাপনা ঢেলে সাজানোর সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে। নীতিমালার অভাবে দেশের স্বর্ণ ও স্বর্ণালংকারের মান এবং স্বর্ণবাজারের ওপর স্বর্ণ ব্যবসায়ীদের যে একচেটিয়া নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল, নীতিমালাটি প্রণয়নের ফলে তা লাঘব হওয়াসহ অবৈধ স্বর্ণ ও স্বর্ণালংকারের আমদানি বন্ধ করা সম্ভব হবে। এছাড়া, স্বর্ণ ও স্বর্ণালংকারের মান যাচাই, ক্রেতা ও বিক্রেতার স্বার্থ সংরক্ষণ এবং স্বর্ণশিল্পী বা শ্রমিকদের অধিকার নিশ্চিতকরণে স্বচ্ছ ও জবাবদিহিমূলক ব্যবস্থার যে ঘাটতি ছিল সেটাও নিরসন করা সহজ হবে।
প্রসঙ্গত, গতকাল বুধবার সচিবালয়ে চোরাচালান ও স্বর্ণ খাতে সুষ্ঠু পরিবেশ নিশ্চিত করতে ‘স্বর্ণ নীতিমালা ২০১৮’ এর খসড়ার অনুমোদন দেয় মন্ত্রিসভা। নীতিমালায় অলঙ্কারের সংজ্ঞাও পরিষ্কার করা হয়েছে।

ফেসবুক মন্তব্য
Share.