সুরের যাদুতে লোকসংগীত উৎসবের প্রথমদিন

সুরের মূর্ছনায় ভাসিয়ে দিতে পর্দা উঠলো ঢাকা আন্তর্জাতিক ফোক ফেস্টিভ্যাল (লোকসঙ্গীত উৎসব)’২০১৭। ঢাকার আর্মি স্টেডিয়ামে বসে ঢাকা আন্তর্জাতিক লোকসংগীত উৎসবের তৃতীয় আসরের প্রথম দিন।

গতকাল বৃহস্পতিবার উৎসবটির উদ্বোধনী মঞ্চে দর্শক মাতান বিভিন্ন দেশ থেকে আগত সংগীতশিল্পীরা।

কর্মমুখর রাজধানীবাসী খানিক সুযোগেই যে সময়টাকে মাতিয়ে তুলতে পারেন তারই প্রমাণ মিলছে ঢাকা আন্তর্জাতিক ফোক ফেস্টিভ্যালের প্রথম দিনে।

গতকালের লোকসংগীতের মঞ্চ মাতিয়েছেন বাংলাদেশের ফকির শাহাবুদ্দিন, বাউলিয়ানা, তিব্বতের শিল্পী তেনজিন চো’য়েগাল, ব্রাজিলের মোরিসিও টিজুমবাহ ও সেক্সটেট এবং আসামের বিখ্যাত শিল্পী পাপন। এ সময় সংগীত পিপাসুদের পদচারণায় মুখরিত ছিল আর্মি স্টেডিয়াম। নাচে-গানে শেষ হয় এ উৎসবের প্রথম দিনের আয়োজন।

সন্ধ্যার দিকে সমাগম কিছুটা কম দেখালেও রাত ৯টার পর শুরু হয় দর্শনার্থীর আগমন। এই জনসমাগম দেখে ফোক ফেস্টিভ্যালের আয়োজক সান কমিউনিকেশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক অঞ্জন চৌধুরী ভালোবাসার মধুর সম্ভাষণে ধন্যবাদ জানান সবাইকে।

স্টেডিয়ামের গ্যালারি, মূল মাঠে এবং ঘাসে বসেও মানুষ গান উপভোগ করছেন। এত মানুষ প্রবেশে চারদিকে হুড়োহুড়ি হলেও পুরো স্টেডিয়াম ছিল কড়া নিরাপত্তার চাদরে ঢাকা। হাজার হাজার দর্শক ঠেকাতে অনেকটা হিমশিম খেয়েছে পুলিশ আর্মি।

প্রথম দিনের ফোক গানের উৎসবে প্রথমে মঞ্চে ওঠেন বাংলাদেশের বাউলিয়ানা, এরপর ফকির শাহাবুদ্দিন। পরিবেশনা শেষে বাংলাদেশ ও বাংলার লোক গানের একটা তথ্যচিত্র প্রদর্শিত হয়। আরও গেয়েছেন মাওরিকিও টিজুমবাহ অ্যান্ড সেক্সেট ব্রাজিলের লোকসংগীতশিল্পী মাওরিকিও টিজুমবাহ। শৈশব থেকেই ব্রাজিলের ঐতিহ্যবাহী সাম্বা নৃত্য শুরু করেন তিনি। সে থেকে এ দীর্ঘ সময়ে কখনও থেমে থাকেনি তার সাম্বা চর্চা।

‘ঢাকা আন্তর্জাতিক লোকসংগীত’ উৎসবে এবারই প্রথম গান পরিবেশন করেন নেপালের তেনজিন চোগিয়াল। তিনি ড্রানিয়েন নামের এক ধরনের গিটার এবং লিংবু বাঁশি বাজিয়ে গান পরিবেশন করেন। আরও গেয়েছেন পাপন। লোকগানের সঙ্গে ফিউশনধর্মী সংগীতায়োজনের জন্য হাজার হাজার ভক্তের কাছে একনামে পরিচিত পাপন।

আজ শুক্রবার ‘ঢাকা আন্তর্জাতিক লোকসংগীত উৎসব-২০১৭’-এর দ্বিতীয় দিনের আসর বসতে যাচ্ছে। আজকের আসরে বাংলাদেশের দর্শকদের জন্য প্রধান আকর্ষণ ভারতের নুরান সিস্টার্স। গতবারের আসরে দর্শকদের মাত করেছিলেন নুরান সিস্টার্স। বিখ্যাত ওস্তাদ গুলশান মিরের সুযোগ্য কন্যা সুলতানা নুরান ও জ্যোতি নুরান।

এছাড়া দ্বিতীয় দিনের আসরে আরো গাইবেন- পাকিস্তানের ফোক ফিউশন ব্যান্ড মিকাল হাসান, পাহার কন্যা নেপালের শেকড় সন্ধানী গানের দল কুটুম্বা, মাটির সুর শোনা যায় যেই গানে সেই গান নিয়ে থাকছেন বাংলাদেশের শাহজাহান মুন্সী।

উপমহাদেশের সবচেয়ে বড় লোকসংগীতের আসর ‘ঢাকা আন্তর্জাতিক লোকসংগীত উৎসব’। বাংলাদেশ ছাড়াও এ উৎসবে গান পরিবেশন করবেন ভারত, পাকিস্তান, নেপাল, ইরান, ব্রাজিল, মালি, ফ্রান্স, জাপানের ১৪০ জন সংগীতশিল্পী।

বাংলাদেশের সংস্কৃতিকে বিশ্বের সামনে তুলে ধরতে সান কমিউনিকেশন ও মাছরাঙা টেলিভিশন আয়োজন করেছে তিন দিনব্যাপী এই লোকসংগীতের আসর। প্রতিদিন সন্ধ্যা ৬টা থেকে রাত ১টা পর্যন্ত চলবে অনুষ্ঠান।

Loading...