লাখ টাকা বিক্রি হতো ১৫ হাজারে, মূল হোতাসহ গ্রেপ্তার ৬

Google+ Pinterest LinkedIn Tumblr +

রাজধানীতে ৫১ লাখ জাল টাকাসহ জাল নোট তৈরি চক্রের ছয় সদস্যকে আটক করেছে গোয়েন্দা পুলিশ। শুক্রবার দিনগত রাতে রাজধানীর তুরাগ থেকে জাল নোট প্রস্তুতকারকদের গ্রেপ্তার করে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) গোয়েন্দা বিভাগ (উত্তর)।
গ্রেপ্তার হওয়া ছয়জন হলেন- আবুল হোসেন ওরফে ইমন(৩৫), শেখ সুমন (৩২), মো. ছগির হোসেন ওরফে শাহীন (৪২), মো. ইকবাল হোসেন (৩২), স্বপ্না (১৯) ও তৌকীর আহম্মেদ ওরফে সুজন (৩০)।
এসব ব্যক্তিদের কাছ থেকে ২৯ হাজার ৮০০ টাকা, একটি ল্যাপটপ, দুটি কালার প্রিন্টার, টাকা তৈরিতে ব্যবহৃত বিভিন্ন ধরনের কাগজ, প্রিন্টারে ব্যবহৃত কালি, স্কিন বোর্ড, জাল টাকায় ব্যবহৃত ফয়েল পেপারসহ ৪ সিরিজের ৫১ লাখ জাল টাকা উদ্ধার করা হয়।
গ্রেপ্তার হওয়া ব্যক্তিরা পুলিশকে জানায়, এক লাখ জাল টাকা তৈরি করতে তাদের খরচ হতো প্রায় দশ হাজার টাকা। তৈরির পর তা পাইকারি বিক্রেতার কাছে ১৪ থেকে ১৫ হাজার টাকায় বিক্রি করতো।
ডিএমপির গোয়েন্দা বিভাগের (উত্তর) উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিসি) মশিউর রহমান জানান, শুক্রবার রাতে রাজধানীর তুরাগের বাদলদী রোডের বাউনিয়ার একটি বাসায় জাল নোট তৈরির কারখানার সন্ধান পায় গোয়েন্দারা। পরে জাল টাকা তৈরির মূলহোতাসহ ৬ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়। এ বিষয়ে তুরাগ থানায় মামলা করা হয়েছে। এছাড়াও তাদের বিরুদ্ধে ঢাকা মহানগরসহ বিভিন্ন থানায় একাধিক জাল নোট সংক্রান্ত মামলা আছে।

ফেসবুক মন্তব্য
Share.