রাবিতে বিভাগের সভাপতিকে অবরুদ্ধ করে শিক্ষার্থীদের অবস্থান কর্মসূচি

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) শ্রেণিকক্ষ নিয়ে দুই বিভাগের শিক্ষার্থীদের দ্বন্দ্বের জেরে ফোকলোর বিভাগের সভাপতিকে অবরুদ্ধ করে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছে ফোকলোর বিভাগের শিক্ষার্থীরা।

বৃহস্পতিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) সকাল ৯টা থেকে বিভাগের সভাপতির কক্ষে তালা দিয়ে কক্ষের সামনে তারা এ কর্মসূচি পালন করে। এ সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনের কাছে কক্ষ ফিরিয়ে দেওয়ার দাবি জানায় শিক্ষার্থীরা।

জানা যায়, সিরাজী ভবনের ১২০, ১২১ ও ১২২ নম্বর কক্ষটি ফোকলোর বিভাগের শিক্ষার্থীরা ব্যবহার করতো। ২০১১ সালে ১২১ নম্বর কক্ষটি প্রশাসন থেকে ইতিহাস বিভাগের জন্য বরাদ্ধ করা হয়। গতকাল বুধবার ওই কক্ষে বিশৃঙ্খলাকে কেন্দ্র করে ইতিহাস ও ফোকলোর বিভাগের শিক্ষার্থীদের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এরপর ফোকলোর বিভাগের শিক্ষার্থীরা ইতিহাস বিভাগের কক্ষে তালা লাগিয়ে ক্লাস বর্জন কর্মসূচি পালন করে। 

আজ সকাল ৯টার দিকে ফোকলোর বিভাগের সভাপতি ড. আখতার হোসেন ওই কক্ষের তালা খুলে দেন। এতে শিক্ষার্থীরা ক্ষিপ্ত হয়ে তাকে তার কক্ষে অবরুদ্ধ করে অবস্থান কর্মসূচি পালন করে। পরে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরিয়াল বডি বিষয়টি সমাধানের আশ্বাস দিলে শিক্ষার্থীরা সভাপতির কক্ষের তালা খুলে দেয়। এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত শিক্ষার্থীরা আন্দোলনরত ছিলো।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, পাঠদানের সময় শ্রেণিকক্ষে বিশৃঙ্খলার পাশাপাশি প্রায়ই ইতিহাস বিভাগের শিক্ষার্থীরা তাদের সঙ্গে খারাপ আচরণ করে।

তবে ইতিহাস বিভাগের শিক্ষার্থীরা জানান, কক্ষটি হস্তগত করতেই ফোকলোর বিভাগের শিক্ষার্থীরা উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে তাদের সঙ্গে প্রায়ই বাক-বিতন্ডায় জড়ায়। আমরা এর প্রতিবাদ করতে গেলে আমাদের দেখে নেওয়ার হুমকি দেয়।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. মো. লুৎফর রহমান বলেন, ‘আমি শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলেছি। আমরা আজকে বিষয়টি সমাধানের জন্য প্রশাসনের সঙ্গে কথা বলবো।

Facebook Comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» এখন থেকে পুরান ঢাকার লাল দালানে রাত কাটবে খালেদার

» জনতার আপন মানুষ এখন আতিকুল ইসলাম, আতিক ভাই ।

» খালেদা জিয়ার ৫ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড

» পরিবারের সদস্য ও দেশবাসীর দোয়া চেয়েছেন খালেদা জিয়া

» রাবিতে বিভাগের সভাপতিকে অবরুদ্ধ করে শিক্ষার্থীদের অবস্থান কর্মসূচি

» রায় শুনতে বিশেষ আদালতে খালেদা জিয়া

» কাকরাইলে পুলিশের সঙ্গে বিএনপি কর্মীদের সংঘর্ষ, টিয়ার শেল নিক্ষেপ

» ইএসএনবাজার.কম’ পণ্য ক্রয়-বিক্রয়ের নতুন মার্কেট প্লেস

» ‘ঝিনুকদহ ভাষা পরিষদের’ ঘোষিত তিন দিনের কর্মসূচী সফল ভাবে পালিত

» শুভ জন্মদিন- সাদিদুল ইসলাম (সাদিদ)

» কে এই সুন্দরী পুলিশ অফিসার

» চাকরি শুধু নগ্ন হয়ে বসে থাকা, বেতন জানলে চমকে যাবেন

» জামিনে এনে আসামিকে বিয়ে, আইনজীবীকেই হত্যা!

» চসিকের গৃহকর আপিল শুনানি ও অ্যাসেসমেন্ট স্থগিত

» ঝিনাইদহে ‌ঝিনুকদহ ভাষা পরিষদ-র অালোচনা সভা অনুষ্ঠিত

Design & Devaloped BY MyhostIT

,

রাবিতে বিভাগের সভাপতিকে অবরুদ্ধ করে শিক্ষার্থীদের অবস্থান কর্মসূচি

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) শ্রেণিকক্ষ নিয়ে দুই বিভাগের শিক্ষার্থীদের দ্বন্দ্বের জেরে ফোকলোর বিভাগের সভাপতিকে অবরুদ্ধ করে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছে ফোকলোর বিভাগের শিক্ষার্থীরা।

বৃহস্পতিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) সকাল ৯টা থেকে বিভাগের সভাপতির কক্ষে তালা দিয়ে কক্ষের সামনে তারা এ কর্মসূচি পালন করে। এ সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনের কাছে কক্ষ ফিরিয়ে দেওয়ার দাবি জানায় শিক্ষার্থীরা।

জানা যায়, সিরাজী ভবনের ১২০, ১২১ ও ১২২ নম্বর কক্ষটি ফোকলোর বিভাগের শিক্ষার্থীরা ব্যবহার করতো। ২০১১ সালে ১২১ নম্বর কক্ষটি প্রশাসন থেকে ইতিহাস বিভাগের জন্য বরাদ্ধ করা হয়। গতকাল বুধবার ওই কক্ষে বিশৃঙ্খলাকে কেন্দ্র করে ইতিহাস ও ফোকলোর বিভাগের শিক্ষার্থীদের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এরপর ফোকলোর বিভাগের শিক্ষার্থীরা ইতিহাস বিভাগের কক্ষে তালা লাগিয়ে ক্লাস বর্জন কর্মসূচি পালন করে। 

আজ সকাল ৯টার দিকে ফোকলোর বিভাগের সভাপতি ড. আখতার হোসেন ওই কক্ষের তালা খুলে দেন। এতে শিক্ষার্থীরা ক্ষিপ্ত হয়ে তাকে তার কক্ষে অবরুদ্ধ করে অবস্থান কর্মসূচি পালন করে। পরে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরিয়াল বডি বিষয়টি সমাধানের আশ্বাস দিলে শিক্ষার্থীরা সভাপতির কক্ষের তালা খুলে দেয়। এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত শিক্ষার্থীরা আন্দোলনরত ছিলো।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, পাঠদানের সময় শ্রেণিকক্ষে বিশৃঙ্খলার পাশাপাশি প্রায়ই ইতিহাস বিভাগের শিক্ষার্থীরা তাদের সঙ্গে খারাপ আচরণ করে।

তবে ইতিহাস বিভাগের শিক্ষার্থীরা জানান, কক্ষটি হস্তগত করতেই ফোকলোর বিভাগের শিক্ষার্থীরা উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে তাদের সঙ্গে প্রায়ই বাক-বিতন্ডায় জড়ায়। আমরা এর প্রতিবাদ করতে গেলে আমাদের দেখে নেওয়ার হুমকি দেয়।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. মো. লুৎফর রহমান বলেন, ‘আমি শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলেছি। আমরা আজকে বিষয়টি সমাধানের জন্য প্রশাসনের সঙ্গে কথা বলবো।

Facebook Comments

সর্বশেষ আপডেট



এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



   

© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিতঃ ২০১৭ । বিডি টাইপ পত্রিকা আগামী প্রজন্মের মিডিয়া

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি