মাগুরায় চলছে অবৈধ সিমের বাজার

আসিফ হাসান কাজল, বিশেষ প্রতিনিধি :

চলছে সিমের মেলা, গ্রামের মহিলা আফরোজা মেলায় সিম কিনলেন সস্তা দামে একবার ফিঙ্গার দেওয়ার পরেও বললেন আঙ্গুল এর ছাপ সঠিক হয়নি অতঃপর আবারো আঙ্গুলের ছাপ দিয়ে সিম কিনে বাড়ি চলে গেলেন!

গ্রামের প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে মাগুরা শহরে সিম কিনতে গিয়েছেন মাগুরা পুলিশ লাইন এর ছেলে উমর। দোকানে সিম কিনতে গেলেই দোকানী বলছেন কি সিম লাগবে? অ্যাক্টিভ সিম লাগলে দাম লাগবে ২৫০ টাকা!

এই হচ্ছে মাগুরা জেলার শহর থেকে গ্রামের সিম বেঁচাকেনার চিত্র। এভাবেই সম্পূর্ণ অবৈধভাবে সিম বিকিকিনি চলছে
দেশের সব বৃহৎ মোবাইল অপারেটর রবি,বাংলালিংক, গ্রামীনফোন ও এয়ারটেল এর সিমগুলো।
এমন অভিযোগের প্রেক্ষিতে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক ব্রান্ড প্রমোটর এর সত্যতা স্বীকার করেছেন।
তবে ডিস্ট্রিবিউশন এর সকল ম্যানেজার বলছেন এই ব্যাপারে তাদের কোন ধারণায় নাই।

মাগুরা জেলার গ্রামীনফোন ড্রিশট্রিবিউশন এর মোঃ সোহেল রানা জানায়, তাদের ডিস্ট্রিবিউশন এ ২৯১ টি ডিভাইস আছে। তবে এই ধরনের অভিযোগ তাদের জানা নেই।
এয়ারটেল এর মাগুরা জেলার ডিস্ট্রিবিউশন ম্যানেজার আবুল খায়ের মীর জানান, এমন কোন তথ্য তার জানা নেই,পরে আমার সামনে তার এক বিপি কে ফোন দিলে মিলে যায় এর সত্যতা।
জেলার রবি কোম্পানী পক্ষে নাদের হোসেন জানায়, এমন কোন তথ্য আপনাকে কেউ প্রকাশ করবে না।
মাগুরা জেলার বাংলালিংক এর কাস্টমার ম্যানেজার বিষয়টি স্বীকার করে বলেছেন, এমন তথ্য আমার কাছেও আছে। তিনি আরও জানান, এক জন মহিলার থেকে ৩ বার আঙ্গুলে ছাপ নেওয়া হচ্ছে একটি সিম সে পেলেও বাকি ১/২ টি সিম বাজারে চলে আসছে তার নামে অবৈধ ভাবে বিক্রি হচ্ছে যত্রতত্র। কিছু অসাধু মার্কেটিং অফিসার ও স্থানীয় সিম বেচাকেনার দোকানীদের অসাধু একটি চক্রই জড়িত এই ব্যবসায়।

মাগুরা জেলার গোয়ান্দা ওসি মোঃ ইনামুল হকের সাথে কথা বলে ও এই বিষয়ে অবগত করলে জানান, এই ধরনের কোন অভিযোগ বা এমন ঘটনা তাদের সম্পূর্ণ অজানা। তিনি আরও জানান,এই ধরনের কাজ সরকারের কার্যকারী উদ্যোগ কে ফলপ্রসু করবেই না পাশাপাশি জন নিরাপত্তার জন্যও হুমকী স্বরুপ।

Loading...