ভুল চিকিৎসায় শিশুসহ প্রসূতির মৃত্যু

Google+ Pinterest LinkedIn Tumblr +

নরায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় নিউ পপুলার জেনারেল হাসপাতাল নামের একটি ক্লিনিকে ভুল চিকিৎসায় নবজাতক ও প্রসূতি মায়ের মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় নিহতের স্বজনরা ও উত্তেজিত এলাকাবাসী হাসপাতালটি ভাংচুর করেছে। পরে পুলিশ হাসপাতালের মালিকসহ পাঁচজনকে আটক করে।
শনিবার সকালে সদর উপজেলার ফতুল্লা থানার পাগলা বাজার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।
নিহতের স্বজনরা জানান, ফতুল্লা স্টেডিয়াম এলাকার আলমগীর মিয়া তার গর্ভবর্তী স্ত্রী শিল্পী বেগমকে বৃহস্পতিবার ডাক্তার তামান্না আক্তারের অধীনে নিউ পপুলার জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করান। শুক্রবার রাতে শিল্পী বেগমের সিজার করা হলে নবজাতক শিশুসহ তার মৃত্যু হয়।
নিহতের স্বামীর অভিযোগ, একজন ডাক্তার তার স্ত্রী ও নবজাতক শিশুকে মৃত অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানোর পরামর্শ দেন। তবে তারা ঢাকা মেডিকেল যাওয়ার পথে মা ও নবজাতক শিশুটির মৃত্যু নিশ্চিত দেখতে পেয়ে পুনরায় ওই হাসপাতালে নিয়ে আসেন।
শনিবার সকালে এ ঘটনার খবর পেয়ে নিহতের স্বজনরা ও এলাকাবাসী এসে হাসপাতালটি ভাংচুর করে। এসময় তারা হাসপাতালটি বন্ধ ঘোষণাসহ অভিযুক্ত চিকিৎসকের শাস্তি দাবি করেন। খবর পেয়ে ফতুল্লা থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে হাসপাতালের চেয়ারম্যান ডাক্তার মজিবুর রহমানসহ পাঁচজনকে আটক করলে পরিস্থিতি শান্ত হয়। তবে এলাকাবাসীর দাবি, এর আগেও এই হাসপাতালে বেশ কয়েকবার এ ধরনের ভুল চিকিৎসায় রোগীর মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে।
ফতুল্লা মডেল থানার উপ-পরিদর্শক মো. দিদার জানান, হাসপাতালটি তাৎক্ষণিকভাবে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে এবং আটককৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। পরবর্তীতে বাদীর অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। নিহতদের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

ফেসবুক মন্তব্য
Share.