ভারতে পরকীয়া অপরাধ নয় অথচ এর জেরেই যুবক খুন

Google+ Pinterest LinkedIn Tumblr +

পরকীয়া অপরাধ নয় বলে রায় গত বৃহস্পতিবার (২৭ সেপ্টেম্বর) রায় দিয়েছে ভারতের সুপ্রিম কোর্ট। অথচ তার একদিন পরেই পরকীয়ার কারণে খুন হয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের পুরুলিয়ার গোয়ালাডি গ্রামে ললিত মাহাতো নামের এক যুবক।

শনিবার ভারতীয় গণমাধ্যম জিনিউজে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে একথা বলা হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, এক বিবাহিত নারীর সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন পুরুলিয়ার কোটশিলার চয়াডি গ্রামের বাসিন্দা ললিত। গোয়ালডি গ্রামের বাসিন্দা অশ্বিনী গোপের মেয়ে পদ্মাবতীর সঙ্গেই প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে তার।

জানা গেছে, মাত্র ১২ বছর বয়সে বিয়ে হয় পদ্মাবতীর। দুই সন্তানও হয়। কিন্তু দাম্পত্য কলহের কারণে স্বামীর ঘর করা হয়নি তার। তাকে বাপের বাড়িতে রেখে চলে যান তার স্বামী। গত চার বছর ধরে বাপের বাড়িতেই আছেন পদ্মাবতী।

এদিকে, কলেজে পড়ার সময় পরিচয় হয় ললিত ও পদ্মাবতীর। বাপের বাড়িতে ফিরে আসার পর পদ্মাবতীর আবারও যোগাযোগ বাড়ে বিবাহিত ললিতের। কিন্তু বিয়ের কথা তার কাছে গোপন করেন এক সন্তানের বাবা ললিত।

ধীরে ধীরে সম্পর্ক আরও ঘনিষ্ঠ হয় তাদের। কিন্তু পদ্মাবতীর পরিবার এই সম্পর্ক মেনে নিতে পারেনি। তাই তার বাবা অশ্বিনী গোপ, ভাই ইন্দ্রজিত গোপ এবং চাচাতো ভাই কমল গোপ ললিত খুন করেছে বলে অভিযোগ বলা হয়েছে।

ললিতের পরিবারের অভিযোগ- ফোন করে ডেকে নিয়ে যায় ললিতকে। তারপরই নিখোঁজ হয়ে যান ললিত। এরপর রেললাইন থেকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করা হয় ললিতকে। হাসপাতালে নেয়া হলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

ফেসবুক মন্তব্য
Share.