অপরাধ

বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে অন্তঃসত্ত্বাকে ধর্ষণ !

সুনামগঞ্জ: জেলার সদর উপজেলায় সাড়ে তিন মাসের অন্তঃসত্ত্বা এক গৃহবধূকে (১৯) বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে হাত পা বেঁধে রেখে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে।

বুধবার (১৩ মার্চ) রাতে সদর মডেল থানায় ভিকটিম বাদী হয়ে ধর্ষণের অভিযোগে সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার সাফেলা গ্রামের ওমর আলীর ছেলে নুরুল আমিনের (৩৫) বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেছেন।

ভিকটিমের পরিবার ও মামলার সুত্রে জানা যায়, সদর উপজেলার সাফেলা গ্রামের হতদরিদ্র পরিবারের সাড়ে তিন মাসের অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূ সোমবার (১১ মার্চ) সন্ধার পর প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে বাহিরে যান। এ দিকে শৌচাগার থেকে বসতঘরের ফেরার পথে গ্রামের প্রতিবেশী প্রভাবশালী পরিবারের নুরুল আমিন ওই গৃহবধূকে গ্রামের পার্শ্ববর্তী মাঠে তুলে নিয়ে যায়। ধর্ষণ করে রক্তাক্ত ও সংজ্ঞাহীন অবস্থায় মাঠেই ফেলে রেখে চলে যায় ধর্ষক।

পরে প্রতিবেশী ও পরিবারে লোকজন হাত পা বাঁধা অবস্থায় সংজ্ঞাহীন ওই গৃহবধূকে উদ্ধার করে রাতেই সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করেন।

বুধবার (১৩ মার্চ) বিকেলে সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার ডা. রফিকুল ইসলাম জানান, ওই গৃহবধূ সাড়ে তিন মাসের অন্তঃসত্ত্বা ছিলেন। অতিরিক্ত রক্তক্ষরণের কারণে এখনো ভিকটিম পুরোপুরি সুস্থ হতে পারেননি। তার ডাক্তারী পরীক্ষাও সম্পন্ন হয়েছে তবে সুস্থ হতে আরো কিছুটা সময় লাগবে।

সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানার ওসি (তদন্ত) আহমেদ সনজুল মুর্শেদ জানান, থানায় মামলা দায়েরের পর প্রাথমিক তদন্তে ধর্ষণের ঘটনার সত্যতা পাওয়া গেছে। অভিযুক্তকে গ্রেপ্তারে পুলিশ তৎপর রয়েছে।

এ বিভাগের আরো খবর

Close