পশ্চাৎদেশ আকর্ষণীয় করার অপারেশন না করতে যুক্তরাজ্যের পদক্ষেপ

Google+ Pinterest LinkedIn Tumblr +

কৃত্রিমভাবে পশ্চাৎদেশ আকর্ষণীয় করার জন্য ‘ব্রাজিলিয়ান বাট লিফট’ পদ্ধতিটি খুবই জনপ্রিয় পাশ্চাত্যের দেশগুলোতে। এই পদ্ধতিতে অপারেশনের মাধ্যমে নারীদের পশ্চাৎদেশকে আরও আকর্ষণীয় করে তোলা হয়।
তবে ‘ব্রাজিলিয়ান বাট লিফট’ অপরেশনের কারণে এ বছরের শুরুতে ২০ বছর বয়সী ব্রিটিশ নারী মারা যায়। সর্বশেষ গত আগস্টে ২৯ বছর বয়সী লে ক্যামব্রিজ নামের আরেক ব্রিটিশ নারী মারা গেলে কিছুটা সতর্ক অবস্থান নেয় যুক্তরাজ্য। ফলে কসমেটিক সার্জনদেরকে এ ধরনের অপারেশন আর না করতে বলেছে দেশটির সরকার।
ব্রাজিলিয়ান বাট লিফট সম্পর্কে ব্রিটিশ এসোসিয়েশন অব এসথেটিক প্লাস্টিক সার্জনস (বাপস) জানায়, এটা সবচেয়ে বিপজ্জনক কসমেটিক সার্জারি। এত বিপজ্জনক হওয়ার পরও এমন অপারেশন করতে আগ্রহী ফিগার সচেতন নারীরা। বিশেষ করে সেলিব্রেটিরা এর প্রতি বেশি ঝুঁকছে। অবশ্য এটাকে জনপ্রিয়ও করেছে সেলিব্রেটিরাই।
বাট লিফট পদ্ধতিতে শরীরের যেকোনও অংশ থেকে চর্বি কেটে পশ্চাৎদেশে যুক্ত করা হয়। এতে কোমর চিকন হয় এবং পশ্চাৎদেশ ফুলে ওঠে। প্লাস্টিক সার্জারিটি সম্পর্কে বাপস জানায়, এই সার্জারির জটিলতার কারণে প্রতি ৩ হাজারের মধ্যে একজন নারী মারা যায়।
এই সার্জারির ভয়াবহতা সম্পর্কে ব্রিটিশ প্লাস্টিক সার্জন কনসালট্যান্ট জেরার্ড লাম্বে বলেন, এতে মৃত্যু ঝুঁকি সর্বোচ্চ। শরীরের এক জায়গা থেকে চর্বি এনে পশ্চাৎদেশে যুক্ত করার সময় এই চর্বি হার্ট কিংবা ব্রেইনে চলে যেতে পারে। তখনই জীবন সংকটাপন্ন হয়ে পরে।

ফেসবুক মন্তব্য
Share.