ঢাকেশ্বরী মন্দিরকে দেড় বিঘা জমি দিলেন প্রধানমন্ত্রী

Google+ Pinterest LinkedIn Tumblr +

দীর্ঘ ৬০ বছরের পুরানো (ভূমি) সমস্যা মিটিয়ে আজ সোমবার ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দিরকে দেড় বিঘা জমি প্রদান করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক নির্মল চ্যাটার্জি বলেন, ‘মন্দিরের (জমি) দীর্ঘ ৬০ বছরের সমস্যা মিটিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ এই জমি আমাদের দিয়েছেন।’তিনি আরও বলেন, ‘আমাদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব দুর্গাপূজা উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী আমাদেরকে এই জমি প্রদান করলেন।’চ্যাটার্জী দীর্ঘ দিনের সমস্যা সমাধানে ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দিরকে জমি দেয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রীকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানান।শেখ হাসিনা আজ সকালে ঢাকেশ্বরী মন্দির পরিদর্শনকালে মন্দিরের জমি সমস্যা সমাধানে হিন্দু সম্প্রদায়ের নেতৃবৃন্দকে আশ্বাস দিয়েছিলেন।শেখ হাসিনা বলেন, ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দিরের জমি সংক্রান্ত সমস্যা সমাধানে সরকার পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। এই ঢাকেশ্বরী মন্দিরে জমি নিয়ে একটা সমস্যা ছিল। সেই সমস্যাটা আমরা সমাধান করে ফেলেছি। বাকী কাজটা আপনাদের ওপরই নির্ভরশীল।প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘ধর্ম যার যার কিন্তু উৎসব সবার।’ আমরা সকলে সেটাই মানি আর বাংলাদেশ বিশ্বে সেটার একটা দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। প্রত্যেকটা উৎসবে সবাই ভাই বোনের মত কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে আমরা এই উৎসবটা উদযাপন করে যাই।তিনি বলেন, স্বাধীনতা সংগ্রামে এবং মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় আমরা মুসলমানরা শুধু নয় আমাদের সবধর্মের মানুষ- হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান- সকলে মিলেই কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে বুকের রক্ত ঢেলে এদেশ স্বাধীন করে গেছেন। বাংলাদেশ লাখো শহীদের রক্তের বিনিময়ে অর্জিত এবং এই বাংলাদেশে জাতি ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে সকলে যার যার অধিকার নিয়েই বসবাস করবে, তাদের ধর্ম-কর্ম পালন করবে।তিনি বলেন, বাংলাদেশের প্রতিটি মানুষের জন্য অন্ন, বস্ত্র, চিকিৎসা, বাসস্থানের ব্যবস্থা করে প্রতিটি মানুষকে একটি উন্নত জীবন দেব- যে স্বপ্ন জাতির পিতা দেখেছিলেন। জাতির পিতা বেঁচে থাকলে বাংলাদেশ বহুআগেই এই দক্ষিণ এশিয়ায় উন্নত দেশ হিসেবে গড়ে উঠতো।

ফেসবুক মন্তব্য
Share.