জনগণকে সাথে নিয়ে জঙ্গিবাদ নির্মূল করা হবেঃ র‍্যাব প্রধান

এ দেশে জঙ্গিবাদের কোনো ঠাঁই হবে না বলেছেন র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ। স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ে দেশে মোট চারবার জঙ্গিদের উত্থান হয়েছে। প্রতিবারই জনগণকে সাথে নিয়ে জঙ্গিবাদ নির্মূল করা হয়েছে বলেও তিনি মন্তব্য করেন।

এবারও প্রধানমন্ত্রীর কঠোর অবস্থানের কারণে জনগণকে সাথে নিয়েই জঙ্গিদের নিঃশেষ করা হয়েছে। এ দেশে জঙ্গিবাদের কোনো ঠাঁই হবে না।

রাজশাহীতে পুলিশের কমিউনিটি পুলিশিং ডে পালন উপলক্ষে আয়োজিত এক সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

শনিবার দুপুরে রাজশাহী মহানগর পুলিশ (আরএমপি) এই সমাবেশের আয়োজন করে। র‌্যাব প্রধান বলেন, রাষ্ট্রের সঙ্গে সাধারণ মানুষের মেলবন্ধন করছে কমিউনিটি পুলিশিং। তাই এ কার্যক্রমকে আরও জোরদার করতে হবে।

তিনি বলেন, এখন থেকে ঘটনা ঘটে যাওয়ার আগেই জঙ্গি-সন্ত্রাসীদের সমূলে নির্মূল করা হবে। সাধারণ মানুষের কাছ থেকেই তথ্য নিয়ে তাদের সহযোগিতায় এ কার্যক্রম পরিচালিত হবে। পুলিশ এবং র‌্যাবের সর্বোচ্চ সামর্থ্য দিয়ে শৃঙ্খলামূলক সমাজ গড়ে তোলা হবে।

আরএমপির পুলিশ লাইন্স স্কুল মাঠে এই সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। আরএমপি কমিশনার মাহাবুবর রহমান এতে সভাপতিত্ব করেন। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন- আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন ও রাজশাহী-৫ (পুঠিয়া-দুর্গাপুর) আসনের সংসদ সদস্য কাজী আবদুল ওয়াদুদ দারা।

এছাড়াও সমাবেশে রাজশাহী মহানগর কমিউনিটি পুলিশিংয়ের আহ্বায়ক ড. আবদুল খালেক, সমাজসেবী শাহীন আক্তার রেণী, রাজশাহী চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি মনিরুজ্জামান মনি, রাজশাহী কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর হবিবুর রহমান, মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকারসহ আরএমপির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা বক্তব্য দেন।

সকালে বেলুন উড়িয়ে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন র‌্যাবের মহাপরিচালক। পরে ‘পুলিশই জনতা, জনতাই পুলিশ’ স্লোগানে শহীদ এএইচএম কামারুজ্জামান কেন্দ্রীয় উদ্যান ও চিড়িয়াখানা চত্বর এলাকা থেকে একটি বর্ণাঢ্য আনন্দ র‌্যালি বের করা হয়। এতে র‌্যাবের মহাপরিচালক ও সমাবেশের অতিথিরাসহ আরএমপির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা অংশ নেন। নগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে র‌্যালিটি সমাবেশস্থলে গিয়ে মিলিত হয়।

Loading...