আরব দুনিয়া

খাশোগি হত্যার বিচার শুরু, পাঁচ জনের মৃত্যুদণ্ড দাবি

তুরস্কে ইস্তাম্বুলে সৌদি আরবের কনস্যুলেট ভবনে সাংবাদিক জামাল খাশোগি হত্যার বিচার শুরু হয়েছে। এই মামলায় সন্দেহভাজন ১১ আসামির মধ্যে পাঁচ জনের মৃত্যুদণ্ডের দাবি জানিয়েছেন সৌদি প্রসিকিউটররা।

বৃহস্পতিবার রিয়াদে এই হত্যাকাণ্ডের বিচার শুরু হয়েছে বলে সৌদি প্রেস এজেন্সির(এসপিএ) বরাত দিয়ে জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের গণমাধ্যম সিএনএন। হত্যাকাণ্ডের প্রায় তিনমাস পর এই বিচারকাজ শুরু হলো।

সৌদি পাবলিক প্রসিকিউটরের বরাত দিয়ে গণমাধ্যমটি জানিয়েছে, তুরস্কের কাছে এই মামলার প্রাসঙ্গিক তথ্য-প্রমাণ চেয়ে বারবার আবেদন করার পরও তারা সাড়া দেয়নি। উল্টো দেশটি বারবার আসামিদেরকে চেয়ে তাদের আইনে বিচার করার কথা বলছে।

গত নভেম্বরে প্রথম সৌদি প্রসিকিউটররা জামাল খাশোগি হত্যায় জড়িতদেরকে মৃত্যুদণ্ডের দাবির কথা জানান। তারা জানান, খাশোগিকে বেঁধে তার শরীরের অতিরিক্ত মাত্রার ঘুমের ওষুধ প্রবেশ করানো হয়। এর ফলেই তার মৃত্যু হয়।

তারা আরও জানান, হত্যার পর প্রথমে তার মরদেহ কেটে টুকরো টুকরো করে পাঁচজন। পরে সেগুলো কনস্যুলেট থেকে সরিয়ে স্থানীয় একজন সহযোগীর কাছে দেয় তারা।

গত ২ অক্টোবর ইস্তাম্বুলে সৌদি কনস্যুলেট ভবনে প্রবেশের পর নিখোঁজ হন দ্য ওয়াশিংটন পোস্টের কলামিস্ট জামাল খাশোগি। প্রথম থেকেই তুরস্ক দাবি করে আসছিল তাকে ভবনটির ভেতরেই হত্যা করা হয়।

সৌদি কর্তৃপক্ষ প্রথমে অস্বীকার করলেও পরে তাকে হত্যার কথা স্বীকার করে। তারা একথাও স্বীকার করে যে এটা ছিল পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড। এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের সেন্ট্রাল ইন্টেলিজেন্স এজেন্সি(সিআইএ) জানিয়েছে, মোহাম্মদ বিন সালমান ব্যক্তিগতভাবে খাশোগির হত্যার আদেশ দেন।

সবশেষ তুরস্কের টেলিভিশন চ্যানেল আল হাবের একটি ভিডিও প্রকাশ করে, যাতে ইস্তাম্বুল থেকে সৌদি আরবের হত্যাকারী দলকে একটি ব্যাগ বহন করে নিয়ে যেতে দেখা যায়। ধারণা করা হচ্ছে, ব্যাগটিতে জামাল খাশোগির মরদেহের খণ্ডিতাংশ ছিল।

এ বিভাগের আরো খবর

Close