আয়ুর্বেদিক উপাদান হিসেবে নিম পাতার ব্যবহার

এম.আর.বি : তেতো স্বাদের এই বস্তুটি আমাদের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। আমাদের দৈনন্দিন জীবনে এর গুরুত্ব অনেক বেশি। সৌন্দর্যচর্চা ও আয়ুর্বেদিক উপাদান হিসেবে নিম প্রাচীনকাল থেকেই বেশ জনপ্রিয়। ভেষজ চিকিৎসার বিভিন্ন ক্ষেত্রে এর ব্যবহার ব্যাপক।

আসুন জেনে নিন নিমপাতার ব্যবহার সম্পর্কে-

* মাথার ত্বকে অনেকেরই চুলকানি ভাব হয়, নিমপাতার রস মাথায় নিয়মিত লাগালে এই চুলকানি কমে, চুল শক্ত হয়, চুলের শুষ্কতা কমে যায় এবং চুল গজানো তরান্বিত হয়।

* নিমপাতা সেদ্ধ পানি গোসলের পানির সাথে মিশিয়ে নিন। যাদের ত্বকে চুলকানি আছে তাদের এতে আরাম হবে আর গায়ে দুর্গন্ধের ব্যাপারটাও কমে যাবে আশা করা যায়।

* নিমের ডাল যে দাঁতের জন্য উপকারী সে কথা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। মুখের দুর্গন্ধ ও দাঁতের জীবাণু রোধে এটি বেশ কার্যকরী। এছাড়াও কাটা ছেড়া বা পোড়া স্থানে নিম পাতার রস ভেষজ ওষুধের মতো কাজ করে।

* ত্বকের সৌন্দর্য ধরে রাখতে নিমপাতা ও মধু মিশিয়ে লাগাতে পারেন। মধু ত্বকের সজীবতা ফিরিয়ে দেয়। কয়েকটা নিমপাতা বেটে সঙ্গে মধু মিশিয়ে মাস্ক তৈরি করুন। মাস্কটি ত্বকে লাগিয়ে কিছুক্ষণ অপেক্ষা করুন। শুকিয়ে গেলে ধুয়ে ফেলুন।

* মাথার ত্বকে অনেকেরই চুলকানি ভাব হয়, নিমপাতার রস মাথায় নিয়মিত লাগালে এই চুলকানি কমে, চুল শক্ত হয়, চুলের শুষ্কতা কমে যায় এবং চুল গজানো তরান্বিত হয়।

* ব্ল্যাকহেডস এবং হোয়াইটহেডস দূর করে নিমপাতা। কমলার খোসা গুঁড়া করে নিম পাউডারের সঙ্গে মেশান। এ দুটো উপকরণ সমপরিমাণ মেশাবেন। এতে কয়েক ফোঁটা গোলাপজল মিশিয়ে পাতলা পেস্ট তৈরি করুন। নাক ও আশেপাশে ঘষে ঘষে লাগান মিশ্রণটি। ১৫ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন।

Facebook Comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» ‘ঝিনুকদহ ভাষা পরিষদের’ ঘোষিত তিন দিনের কর্মসূচী সফল ভাবে পালিত

» শুভ জন্মদিন- সাদিদুল ইসলাম (সাদিদ)

» কে এই সুন্দরী পুলিশ অফিসার

» চাকরি শুধু নগ্ন হয়ে বসে থাকা, বেতন জানলে চমকে যাবেন

» জামিনে এনে আসামিকে বিয়ে, আইনজীবীকেই হত্যা!

» চসিকের গৃহকর আপিল শুনানি ও অ্যাসেসমেন্ট স্থগিত

» ঝিনাইদহে ‌ঝিনুকদহ ভাষা পরিষদ-র অালোচনা সভা অনুষ্ঠিত

» পৃথিবীর বাইরে প্রাণের সন্ধান !

» গ্রাম থেকে আসা সেই মানশি এখন কোটি কোটি তরুণীর আদর্শ!

» সিএনজি অটোরিকশাও মিলবে অ্যাপে, ঘোষণা শিগগিরই

» মাগুরায় চলছে অবৈধ সিমের বাজার

» আয়ুর্বেদিক উপাদান হিসেবে নিম পাতার ব্যবহার

» চাঁদে ৫০ কিলোমিটার সুড়ঙ্গের হদিস মিলেছে

» আইফোন এক্সের ভেতরে যা রয়েছে ভিডিও সহ দেখুন

» নেকলেস পরার সঠিক কায়দা-কানুন

Design & Devaloped BY MyhostIT

,

আয়ুর্বেদিক উপাদান হিসেবে নিম পাতার ব্যবহার

এম.আর.বি : তেতো স্বাদের এই বস্তুটি আমাদের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। আমাদের দৈনন্দিন জীবনে এর গুরুত্ব অনেক বেশি। সৌন্দর্যচর্চা ও আয়ুর্বেদিক উপাদান হিসেবে নিম প্রাচীনকাল থেকেই বেশ জনপ্রিয়। ভেষজ চিকিৎসার বিভিন্ন ক্ষেত্রে এর ব্যবহার ব্যাপক।

আসুন জেনে নিন নিমপাতার ব্যবহার সম্পর্কে-

* মাথার ত্বকে অনেকেরই চুলকানি ভাব হয়, নিমপাতার রস মাথায় নিয়মিত লাগালে এই চুলকানি কমে, চুল শক্ত হয়, চুলের শুষ্কতা কমে যায় এবং চুল গজানো তরান্বিত হয়।

* নিমপাতা সেদ্ধ পানি গোসলের পানির সাথে মিশিয়ে নিন। যাদের ত্বকে চুলকানি আছে তাদের এতে আরাম হবে আর গায়ে দুর্গন্ধের ব্যাপারটাও কমে যাবে আশা করা যায়।

* নিমের ডাল যে দাঁতের জন্য উপকারী সে কথা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। মুখের দুর্গন্ধ ও দাঁতের জীবাণু রোধে এটি বেশ কার্যকরী। এছাড়াও কাটা ছেড়া বা পোড়া স্থানে নিম পাতার রস ভেষজ ওষুধের মতো কাজ করে।

* ত্বকের সৌন্দর্য ধরে রাখতে নিমপাতা ও মধু মিশিয়ে লাগাতে পারেন। মধু ত্বকের সজীবতা ফিরিয়ে দেয়। কয়েকটা নিমপাতা বেটে সঙ্গে মধু মিশিয়ে মাস্ক তৈরি করুন। মাস্কটি ত্বকে লাগিয়ে কিছুক্ষণ অপেক্ষা করুন। শুকিয়ে গেলে ধুয়ে ফেলুন।

* মাথার ত্বকে অনেকেরই চুলকানি ভাব হয়, নিমপাতার রস মাথায় নিয়মিত লাগালে এই চুলকানি কমে, চুল শক্ত হয়, চুলের শুষ্কতা কমে যায় এবং চুল গজানো তরান্বিত হয়।

* ব্ল্যাকহেডস এবং হোয়াইটহেডস দূর করে নিমপাতা। কমলার খোসা গুঁড়া করে নিম পাউডারের সঙ্গে মেশান। এ দুটো উপকরণ সমপরিমাণ মেশাবেন। এতে কয়েক ফোঁটা গোলাপজল মিশিয়ে পাতলা পেস্ট তৈরি করুন। নাক ও আশেপাশে ঘষে ঘষে লাগান মিশ্রণটি। ১৫ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন।

Facebook Comments

সর্বশেষ আপডেট



এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



   

© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিতঃ ২০১৭ । বিডি টাইপ পত্রিকা আগামী প্রজন্মের মিডিয়া

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি